বায়োফ্লক প্রযুক্তিতে মাছচাষ

বাংলাদেশের তরুণ মৎস্য চাষিদের মধ্যেই অনেকেই নতুন এক পদ্ধতিতে মাছ চাষে আগ্রহী হয়ে উঠছেন যার নাম বায়োফ্লক, যা দেশে মাছের উৎপাদন অতি দ্রুত বাড়ানোর ক্ষেত্রে বড় ভূমিকা রাখতে পারে।


তৈরি করেছেন সর্বশেষ সংষ্করণ: ১৪-মে-২৩

পূর্বে

এই কোর্সে অন্তর্ভুক্ত

  • 43 লেকচার
  • 1 রিসোর্স ডাউনলোড
  • ট্যাবলেট এবং ফোনে ব্যবহার যোগ্য
  • সনদপত্র

এই কোর্সে শিক্ষার্থীরা কী শিখবে?

ভূমিকা
বায়োফ্লকের ইতিহাস
মৎস্যচাষে নতুন প্রযুক্তি
বায়োফ্লক প্রযুক্তি
বায়োফ্লক প্রযুক্তিতে অণুজীবের ভূমিকা
বায়োফ্লক প্রযুক্তিতে মাছ চাষের সুবিধা
বায়োফ্লক প্রযুক্তিতে মাছ চাষের সীমাবদ্ধতা
বায়োফ্লকের পুষ্টি
বায়োফ্লক কীভাবে কাজ করে
বায়োফ্লকে কার্বন-নাইেট্রোজেন অনুপাত (C-N Ratio)
অজৈব নাইেট্রোজেন নিয়ন্ত্রণে বায়োফ্লক প্রযুক্তির ব্যবহার
বায়োফ্লক প্রযুক্তিতে মাছচাষের ধরন
পুকুরে বায়োফ্লক প্রযুক্তিতে মাছ ও চিংড়ি চাষ
ট্যাংকে বায়োফ্লক প্রযুক্তিতে মাছচাষ
বায়োফ্লকে মাছচাষে প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি ও উপকরণ
বায়োফ্লক প্রযুক্তিতে মাছচাষে পানির প্রয়োজনীয় গুণাবলী
মাছের প্রজাতি নির্বাচন, মজুদ ও খাদ্য ব্যবস্থাপনা
নিয়মিত করণীয়
বায়োফ্লকে সাধারণ রোগ ও তার প্রতিকার
উৎপাদন ও আয়-ব্যয়
বায়োফ্লক প্রযুক্তিতে সাফল্যের জন্য যেসব বিষয়ে সতর্ক থাকা খুব জরুরী

পাঠ্যসূচি

বিস্তৃত করুন

43 লেকচার

১. ভূমিকা 1 লেকচার
২. বায়োফ্লকের ইতিহাস 1 লেকচার
৬. বায়োফ্লক প্রযুক্তিতে মাছ চাষের সুবিধা 1 লেকচার
৭. বায়োফ্লক প্রযুক্তিতে মাছ চাষের সীমাবদ্ধতা 1 লেকচার
৮. বায়োফ্লকের পুষ্টি 1 লেকচার
৯. বায়োফ্লক কীভাবে কাজ করে 1 লেকচার
১০. বায়োফ্লকে কার্বন-নাইেট্রোজেন অনুপাত (C-N Ratio) 1 লেকচার
১৩. পুকুরে বায়োফ্লক প্রযুক্তিতে মাছ ও চিংড়ি চাষ 1 লেকচার
১৫. বায়োফ্লকে মাছচাষে প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি ও উপকরণ 1 লেকচার
১৬. বায়োফ্লক প্রযুক্তিতে মাছচাষে পানির প্রয়োজনীয় গুণাবলী 2 লেকচার
১৭. মাছের প্রজাতি নির্বাচন, মজুদ ও খাদ্য ব্যবস্থাপনা 1 লেকচার
১৮. নিয়মিত করণীয় কাজ (নমুনায়ন, স্বাস্থ্য পরিক্ষা, ট্যান পরিক্ষা, ডিও পরিক্ষা, ফ্লক নিয়ন্ত্রণ ইত্যাদি) 2 লেকচার
১৯. বায়োফ্লকে সাধারণ রোগ ও তার প্রতিকার 1 লেকচার
২০. উৎপাদন ও আয়-ব্যয় 1 লেকচার
২১. বায়োফ্লক প্রযুক্তিতে সাফল্যের জন্য যেসব বিষয়ে সতর্ক থাকা খুব জরুরী 1 লেকচার
২২. প্রয়োজনীয় তথ্যসূত্র : 1 লেকচার
কুইজ 1 লেকচার

বর্ণনা

সত্তরের দশকে French Research Institute for Exploitation of the Sea -এর বিজ্ঞানীরা প্রথম বায়োফ্লক প্রযুক্তির ধারণা প্রদান করেন। Steven Serfling 1986-94 সময়কালে Solar Aquafarms নামক তেলাপিয়া খামারে বাণিজ্যিকভাবে বায়োফ্লক প্রযুক্তি ব্যবহার করেন। সে সময় এ প্রযুক্তির নাম ছিল Organic Detrital Algae Soup (ODAS) System। নব্বইয়ের দশকের গোড়ার দিকে ইসরাইলের Technion University ও আমেরিকার Waddell Mariculture Center (WMC) থেকে আলাদাভাবে দু’দল বিজ্ঞানী যথাক্রমে তেলাপিয়া ও চিংড়িচাষে বায়োফ্লক প্রযুক্তি প্রয়োগের ওপর বেশ কিছু গবেষণা প্রবন্ধ প্রকাশ করেন। ইসরাইলের Technion University-এর গবেষণা দলটির নেতৃত্ব দেন Yoram Avnemelech। তাঁকে বায়োফ্লক প্রযুক্তির পথিকৃত মনে করা হয়। গবেষণালব্ধ জ্ঞানকে কাজে লাগিয়ে বায়োফ্লক প্রযুক্তিকে ব্যবহার করে সফলভাবে চিংড়ির প্রথম বাণিজ্যিক চাষ শুরু হয় মধ্য আমেরিকার দেশ বেলিজ -এর বেলিজ একোয়াকালচার ফার্মে। পরবর্তীতে ইউরোপ, আমেরিকা ও এশিয়ার বিভিন্ন দেশে বায়োফ্লক প্রযুক্তি জনপ্রিয়তা লাভ করে। বর্তমানে মৎস্য অধিদপ্তরের কারিগরি সহায়তায় বাংলাদেশেও বায়োফ্লক প্রযুক্তিতে মাছচাষ সম্প্রসারিত হচ্ছে।

সর্বমোট ভিজিটর

৭০০২৩